টরপেডো: জলের নিচে শত্রুর যম কেনো।Torpedo A Nightmare For Enemy.

টরপেডো: জলের নিচে শত্রুর যম কেনো।Torpedo A Nightmare For Enemy.
ক্রেডিটঃwww.dvidshub.net

টরপেডো: শত্রুর জলের নিচে যম কেনো।Torpedo A Nightmare For Enemy.


টরপেডো শত্রুর একরকমের অস্ত্র যেটা মেনলি জলের নিচে থেকে লঞ্চ করা হয় আবার কখনো সখনো জলের উপরের ভাগ থেকেও লঞ্চ করা হয় শত্রুর নৌসম্পত্তিকে ধ্বংস করা বা কাউন্টার দেবার জন্য আর এটাই একটি দুঃস্বপ্ন হয়ে উঠতে পারে একটি সাবমেরিনের জন্য। 


একটি টরপেডো প্রচুর এক্সপ্লোসিভ বহন করে নিয়ে চলে এবং একবার কোনো শত্রুর নৌজানের সঙ্গে ধাক্কা খেলে সেটাকে ধ্বংস করে দেয় আবার অনেক সময় নিজে শত্রুর নৌজানের কাছে আসলে নিজের সঙ্গে বহন করে আনা এপ্লোসিভ ডেটোনেট করেদেয় তাও একটি দুরুত্ব থেকে, একটি টরপেডো দেখতে কতকটা সিগারেটে বা পাইবের মতো যেটা একটি স্বচালিত জ্বলজো মিসাইল যেটা সাবমেরি, নেভাল শিপ, ও এয়ার প্লেন থেকে লঞ্চ করা যায়।          

 আরো পড়ুন : ইসরাইলি ড্রোন কূটনীতি কিভাবে চীন ও তাইওয়ান সাহায্য করেছিলো।

সমস্ত মর্ডান টরপেডো গুলিতে উন্নত থেকে উন্নতর সিস্টেম ইনস্টল করা হয়েছে যেটা একবার লঞ্চ করার পর নিজে থেকেই জলের গভীরতা, তাপমাত্রা,দিক সর্বোপরি এটা সহজেই টার্গেটকে সনাক্ত করতে পারে খুবই পাশাপাশি এটাকে ধোকা দেবার কোনো মাধ্যম বা উপায় নেই বললেই চলে বর্তমানে টরপেডো দুটি ভাগে ভাগ করা হয় লাইট ওয়েট ও হেভি ক্যাটাগিরির টরপেডো একই ভাবে এগুলির একুরেসি খুবই সঠিক।  


কিভাবে একটি টরপেডো জলের নিচে যাতাযাত করে। 

 ১.কমপ্রেসড এয়ার : 

সবথেকে প্রথম টরপেডো চালানো হয়েছিলো এই কমপ্রেসড এয়ার এনার্জি উৎসকে কাজে লাগিয়ে যেটা জলের ১৮০ মিটার গভীরে যেতে সক্ষম পাশাপাশি এটা ঘন্টায় ১২ কিলোমিটার পথ অত্রিক্রম করতে সক্ষম একই ভাবে এটার গতি ও আঘাত করার একুরেসি রেট উন্নতি করা হয়। 


২.হিট টরপেডো :

এই রকমের এনার্জি উৎস ১৯০৪ থেকে ব্যাবহার শুরু হয় যেখান একটি টরপেডোকে ক্ষমতা দেবার জন্য একটি ইঞ্জিনের ব্যবহার করা হয় যেটার মধ্যে দিয়ে এয়ার বা বায়ু পাঠানো হয় যেটার মধ্যে তরল জ্বালানি মিশ্রণ ইঞ্জেক্ট করে টরপেডোকে জলের মধ্যে দিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়, যেটা একপ্রকারের কম রেলিয়াবেল পদ্ধতি কারণ এই রকম ইঞ্জিন প্রচুর হিট নির্গত হয় তাই এটা সহজে কন্ট্রোল করা যায় না পাশাপাশি এই ইঞ্জিনে প্রচুর তরল জ্বালানি প্রয়োজন হয়। 


৩.ইলেকট্রিক ব্যাটারী :

১৮৭৩ সালে প্রথম ব্যাটারী চালিতো টরপেডো আবিষ্কার করা হয় যেটা সবথেকে সস্তা একটি উপায় সহজে টরপেডো জলের নিচে দিয়ে টরপেডো চালানোর, যেটা প্রথম জার্মানি আবিষ্কার করেন দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগে। 


Post a Comment

0 Comments